Thursday, July 24, 2014

বৃহন্নলা / ড. মোহাম্মদ আমীন - শুবাচ

বৃহন্নলা :

বৃহৎ + নল + আ = বৃহন্নলা। এর মানে দীর্ঘভুজা। অর্জুন নপুংসক ছিলেন এক বছর, কিন্তু তিনি সেই সময় কি নিজের নাম হিজড়া শব্দের প্রতিশব্দে রাখবেন? অর্জুন দীর্ঘ হাত (আজানুলম্বিত) ছিলেন বলেই ঐ নাম ধারণ করেন। ব্লগ লেখক হিজড়াদের বৃহন্নলা নামে ডাকার পরামর্শ দিয়েছেন মাত্র, তাতে বৃহন্নলা শব্দের মানে হিজড়া বোধ হল না। কোন অভিধান কি বৃহন্নলা শব্দের হিজড়া অর্থ গ্রহণ করেছে?  সংসদ বাংলা অভিধান (২০১১) লিখেছে: "বৃহন্নলা বিণ. দীর্ঘভুজা, দীর্ঘ বাহুবিশিষ্টা। বি. অজ্ঞাতবাসকালে ক্লীববেশী অর্জুনের ছদ্মনাম; (আল.) ক্লীব।  আমি বৃহন্নলা শব্দের মানেটা প্রথম পাই হুমায়ুন আহমেদের বই পড়ে। এর পরে আমার এক বন্ধু মাধ্যমে জানতে পারি, ইবি তে ইংরেজি লিটারেচার এ অনার্স করার সময় তাদের শিক্ষক পড়িয়েছিলেন "হারমোফ্রডাইট" মানে হচ্ছে ন-পুংসক, এবং শিক্ষক বলেছিলেন বৃহন্নলা একই শব্দার্থ নির্দেশ করলেও এটা উদ্ভীদ জাতীয়কে বুঝানো হয়।
অর্জুন কি নাম নিয়েছিলেন কেন নিয়েছিলেন সেটা আরেক কাহিনী। তার কর্মের সাথেই/ ইচ্ছার সাথেই সব শব্দের মানে হবে এমন কিছু নিয়ম মেনে চলে না ভাষা। হয়তো অর্জুন তার নাম বৃহন্নলা রেখেছিলেম লম্বা হাতের কারনে, কিন্তু অনেকে তার ন-পুংশকতা বোঝাতেই পরবর্তীতে হিজড়ার প্রতিশব্দ হিসাবে এটা ব্যাবহার করে আসছে।
মূলত বৃহন্নলা - ক্লীবরূপী অর্জুন। অর্জুন অস্ত্রশিক্ষার্থ স্বর্গবাসকালে উর্বশীকে প্রত্যাখান করার জন্য উর্বশীর অভিশাপে ক্লীবত্ব প্রাপ্ত হন। অজ্ঞাতবাসের বৎসরে অর্জুন ক্লীবরূপে এই নাম গ্রহণ করেন।" 

No comments:

Post a Comment